Amader Kantho- Bangla Online News Portal and Bangladeshi online news source for Game, Binodon, politics, national, international, lifestyle, sports, and many more factors.

ঢাকা, সোমবার, ১১ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৬ জুলাই, ২০২১

Facebook Facebook Facebook Facebook

বাঙালির গৌরবগাঁথা বিজয়ের প্রাপ্তি!

বুলবুল হোসেন মোড়ল:
প্রকাশিত: বুধবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০২০, ০৪:৫০
বুলবুল হোসেন

১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাঙালি জাতির সবচেয়ে গৌরবোজ্জ্বল অর্জনের স্মৃতিবিজড়িত দিন। এদিন বাঙালি জাতি পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্তি পেয়েছিল। পৃথিবীতে কোনো জাতি চিরকাল ধরে পরাধীনতার শৃঙ্খলে আবদ্ধ থাকতে চায় না। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসও তার ব্যতিক্রম নয়। আর এই স্বাধীনতার জন্য বাঙালিকে পাড়ি দিতে হয়েছে দীর্ঘ সংগ্রামদীপ্ত পথ। এইদিন পৃথিবীর মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটে স্বাধীন বাংলাদেশের। দেশের মানুষ নতুন আশায় বুক বাঁধে, নতুন করে স্বপ্ন দেখে।  

একটি বৈষম্যহীন মুক্তসমাজ গঠনের অব্যাহত আকাঙ্ক্ষার ফসল বাংলাদেশ। দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি, জ্ঞান-বিজ্ঞানে উৎকর্ষতা, উন্নয়ন, শান্তি, সামাজিক নিরাপত্তা, সুশাসন, মানবিক মূল্যবোধ এবং জীবন যাত্রার মান উন্নয়ননের সূচকে স্বাধীনতার ৪৯টি বছরে আমাদের অর্জনকে আজ মূল্যায়নের সময় এসেছে। আমাদের অর্জনকে যদি আজ নিরপেক্ষভাবে মূল্যায়ন করি তাহলে প্রত্যাশা অনুযায়ী আমরা এগিয়ে যেতে পারিনি। আমাদের আরো এগিয়ে যাবার দরকার ছিল এবং আমরা সেটা পারতাম।

জাতীয় ঐক্য বিনষ্ট এবং জাতি আজ বিভক্ত। ঐক্যের পরিবর্তে সর্বত্রই আজ অনৈক্যের সুর। অথচ বিশ্বের অন্যান্য দেশসমূহ জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমে আজ সর্বদা উন্নয়ন, অগ্রগতি এবং শান্তির পথে অগ্রসরমান। আজ থেকে ৪৯ বছর আগে যেসব দেশের অবস্থান ছিল আমাদেরই কাতারে, সময়কে যথাযথ এবং পরিকল্পিতভাবে কাজে লাগানোর মাধ্যমে তারা আজ এগিয়ে গেছে অনেক দূর। দারিদ্র্যতা, অশিক্ষা আর হতাশাকে জয় করে তারা আজ উন্নত, শিক্ষিত এবং ধনী রাষ্ট্র হিসেবে পৃথিবীর বুকে দাঁড়িয়ে আছে। মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম, সিঙ্গাপুর তার উৎকৃষ্ট উদাহরণ। উন্নয়ন এবং সমৃদ্ধির পথে তারা সর্বদা অগ্রসরমান।

স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে স্বাধীনতা রক্ষা করা কঠিন। বিভেদের রাজনীতির কারণে আমরা অনেক পিছিয়েছি। দেশে আজও গণতন্ত্র ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ বিকশিত হয়নি। রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সুস্থ্যধারার রাজনীতি চর্চার সংস্কৃতি এখনও গড়ে ওঠেনি। যে প্রত্যাশা নিয়ে আমরা মুক্তি সংগ্রামের মাধ্যমে স্বাধীনতার লাল সূর্য্যটা ছিনিয়ে এনেছিলাম তার প্রাপ্তি এখনো অনেকটাই অধরা। স্বাধীন দেশের নাগরিকেরা খুব বেশি কিছু চায় না। তারা চায় অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান এবং আইনের শাসন ও ন্যায়বিচার।

বাংলাদেশ ১৬ কোটি মানুষের দেশ। ঘনত্বের দিক দিয়ে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষ এই দেশেই বসবাস করে। এ জনগণকে আজ সম্পদে পরিণত করতে হবে। পৃথিবীর অনেক দেশ তাদের উন্নয়নকে এগিয়ে নেয়ার জন্য জনশক্তি আমদানি করে। আর আমরা আমাদের জনগণকে বিদেশে রপ্তানি করি।

১৯৭১ সালের মহান মুত্তিযুদ্ধে ত্রিশ লাখ মানুষ জীবন উৎসর্গ করেছে। কিন্তু এখনো এই ত্রিশ লাখ শহীদের স্মৃতিকে সংরক্ষণ করা হয়নি। অথচ তাদের তালিকা সংগ্রহ করে তাদেরকে স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানানো সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। কারণ দেশের স্বাধীনতার জন্য তারা জীবন দিয়েছে, তাদের জীবনের বিনিময়ে আমরা স্বাধীন একটি দেশ পেয়েছি। আমরা ১৬ কোটি মানুষের আদম শুমারী করেছি, ১০ কোটি ভোটারের তালিকা করে পরিচয়পত্র তৈরি করেছি কিন্তু ত্রিশ লাখ শহীদের তালিকা এখনো করা যায়নি।

স্বাধীনতার সুফল অর্জন ও তা জনগনের দ্বারে পৌঁছিয়ে দিতে হলে সকলকে বিশেষভাবে সচেতন ও আন্তরিক হতে হবে। আমাদের স্বাধীনতা রক্ষা ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। মানবিক সমাজ গঠনই পারে আমাদের সামনের দিকে এগিয়ে নিয় যেতে। সকল রাজনৈতিক দলকে ব্যক্তিস্বার্থের ঊর্ধ্বে দেশের স্বার্থকে স্থান দিতে হবে। এদেশেই আমরা জন্মেছি, এদেশেই আমরা বসবাস করব এবং এদেশকেই আমাদের গড়তে হবে। তাই নিজেদের কল্যাণের স্বার্থেই আসুন আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হই এবং দেশের উন্নতির জন্য কাজ করি। ঐক্যবদ্ধ জাতি মানেই ঐক্যবদ্ধ শক্তি। বিজয়ের হাসিতে উদ্ভাসিত হউক সকলের মুখ, এটাই আমাদের চাওয়া।

লেখক: সিনিয়র সাব-ইডিটর, আমাদেরকণ্ঠ ২৪ ডট কম

বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. জিয়াউল হক
চেয়ারম্যান: মিসেস নাজমা হক
উপদেষ্টা: এ.কে.এম. মর্তুজা, সাবেক যুগ্ম সচিব
ঠিকানা: শাঁহ আলী টাওয়ার (৩য় তলা)
৩৩, কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫ ।

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি ।
©২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । আমাদেরকণ্ঠ২৪ ডট কম, জিয়া গ্রুপের একটি প্রতিষ্ঠান ।